শনিবার ২৮ নভেম্বর ২০২০ ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
 
শিরোনাম: দেশে একদিনেই ৩৬ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৯০৮        প্রতিটি মানুষের জন্য বিনামূল্যে ভ্যাকসিন নিশ্চিতের আহ্বান       প্রেস কাউন্সিল আইন সংশোধন হচ্ছে: তথ্যমন্ত্রী       আগাম জামিন চাইলেন পাপুলের স্ত্রী-মেয়ে-শ্যালিকা       নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাস খালে, নিহত ৪       দেশ জাতি ও মানুষের জন্য যেন কাজ করতে পারি: এম.এন.এইচ বুলু       পরমাণু বিজ্ঞানী হত্যার কঠিন প্রতিশোধ নেয়ার ঘোষণা ইরানের      


সামনে বড় বিপদ!
করোনা পরিস্থিতি যেকোনো দিকে মোড় নিতে পারে বলে বিশেষজ্ঞদের অভিমত
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: শুক্রবার, ২০ নভেম্বর, ২০২০, ৮:৫১ পিএম |

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় (বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত) করোনাভাইরাসে ২ হাজার ২৭৫ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে। এর আগের ২৪ ঘণ্টায় (বুধবার সকাল ৮টা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত) নতুন করে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয় দুই হাজার ৩৬৪ জনের। তার আগের ২৪ ঘণ্টায় (মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে বুধবার সকাল ৮টা পর্যন্ত) করোনাতে নতুন করে দুই হাজার ১১১ জন শনাক্তের খবর দেয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এর আগের দিন ১৭ নভেম্বর দুই হাজার ২১২ জন ও ১৬ নভেম্বর শনাক্ত হয়েছিলেন দুই হাজার ১৩৯ জন। টানা পাঁচ দিন রোগী শনাক্ত হচ্ছেন দুই হাজারের ওপরে। ৮ মার্চ থেকে এখন পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছে ৪ লাখ ৪৩ হাজার ৪৩৪ জন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তিন সপ্তাহ ধরে রোগী শনাক্তের হার ঊর্ধ্বমুখী। এর মধ্যে শীত আসি আসি করছে। তখন পরিস্থিতি যেকোনো দিকে মোড় নিতে পারে। সময়মতো ব্যবস্থা না নিলে বড় বিপদ অপেক্ষা করছে। তাই এখনি রোগী শনাক্ত করে আইসোলেশন, কোয়ারেন্টিন ও স্বাস্থ্যবিধিতে জোর দিতে হবে সরকারকে। মৃত্যুর সংখ্যাকে এখনও আশঙ্কাজনক নয় মনে করছেন অনেকে। তবে পরিস্থিতি ঘুরে গেলে মহামারি লেগে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। আপাতত সংক্রমণের হার পাঁচের নিচে নামিয়ে আনা না গেলেই বিপদের শঙ্কা থাকে। আমরা এখনও বিপৎসীমার ভেতরে রয়েছি উলে­খ করে রোগতত্ত¡, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) সাবেক প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা এবং বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) কার্যকরী সদস্য ডা. মুশতাক হোসেন বলেন, এক দিনের মৃত্যুর সংখ্যাকে অ্যালার্মিং বলা যাবে না। তবে সংক্রমণের সংখ্যা বেশি, শনাক্তের হারটাও বেশি। এখন যা ১২ থেকে ১৪ শতাংশের মধ্যে। সেই অর্থে সংক্রমণ এখন নিয়ন্ত্রণহীন। তিনি আরো বলেন, শুধু বিমানবন্দরেই আমরা আইসোলেশন এবং কোয়ারেন্টিন করতে তৎপর। কিন্তু দেশের ভেতর হাজার হাজার রোগী শনাক্ত হচ্ছে প্রতিদিন। তাদের সংস্পর্শে যারা আসছে তাদের চিহ্নিত করা যাচ্ছে না। অথচ মহামারি ঠেকাতে সবার আগে দরকার কোয়ারেন্টিন।
প্রথম ঢেউ এখনও শেষ হয়নি জানিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক পরিচালক অধ্যাপক ডা. বেনজির আহমেদ বলেন, গত তিন দিনের সংক্রমণ কিন্তু হঠাৎ করে বাড়েনি। এ দিয়ে কিছু বোঝা যাবে না। আগামী সাত দিনের সংক্রমণের হারের সঙ্গে যদি তার আগের সাত দিনের মিল পাওয়া যায় তবে বলা যাবে সংক্রমণের হার বেড়েছে। তিনি বলেন, আমরা চার মাস আগে অ্যান্টিজেন টেস্ট করার পরামর্শ দিলেও সেটা চালু করা গেল না। তিনি বলেন, ‘পুরো করোনার সময়েই স্বাস্থ্য বিভাগের নেতৃত্বহীনতা দেখেছি। কখনই এ বিভাগকে মহামারি প্রতিরোধের মতো নেতৃত্ব নিতে দেখিনি।’
তবে দ্বিতীয় ঢেউ না এলেও স্থিতিশীল পরিস্থিতিটিকেই যথেষ্ট বিপজ্জনক বলে মনে করছেন ডা. মুশতাক। তিনি বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিকে দ্বিতীয় ঢেউ না বলে বিপৎসীমা বাড়ছে বলাই শ্রেয়। জুন-জুলাইয়ের পর সংক্রমণ ও মৃত্যু কিছুটা কমলেও অবস্থা যে খুব বেশি ভালো হয়ে গেছে, তেমনটা বলার সুযোগ নেই। কারণ আমাদের এখানে মাসখানেক হলো সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা একটি নির্দিষ্ট অবস্থানের আশপাশেই রয়েছে। আমাদের সতর্ক থাকতে হবে যেন কোনোভাবেই এই শতাংশের হার বেড়ে না যায়।
চলমান পরিস্থিতিতে করোনাভাইরাসের সেকেন্ড ওয়েভ বা দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ে আলোচনার বদলে স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে অনুসরণের প্রতি মনোযোগী হওয়ার আহŸান জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। একদিকে করোনার ভ্যাকসিনও আশার আলো দেখাচ্ছে। তবে ভ্যাকসিন না পেলেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললেই করোনা নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব- সে বিষয়টিই জোর দিয়ে বলছেন তারা। সেক্ষেত্রে মাস্কের ব্যবহার নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে সরকার যে উদ্যোগ নিয়েছে, সেটি কার্যকরভাবে প্রয়োগের আহŸান জানিয়েছেন তারা। সম্ভব হলে এখনো এলাকাভিত্তিক আইসোলেশন বাস্তবায়নের কথাও বলছেন তারা।
বিএসএমএমইউ মেডিসিন অনুষদের সাবেক ডিন ও প্রধানমন্ত্রী ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. এ বি এম আবদুল­াহ বলেন, সরকার একটি উদ্যোগ নিয়েছে- ‘নো মাস্ক নো সার্ভিস’। দোকান মালিক সমিতি বলেছে মাস্ক না থাকলে দোকানে ঢুকতেই দিবে না। তবে এসব যেন কাগজে-কলমে না থাকে, বাস্তবায়ন যেন থাকে। সর্বস্তরের জনগণকে সচেতন করে তুলতে হবে। সবাই মিলে জনগণকে সচেতন করে তুলতে পারলেই আমরা কেবল দ্বিতীয় ঢেউ ঠেকাতে পারব, সংক্রমণের ঝুঁকি কমাতে পারব।
তিনি বলেন, আমাদের দেশে অনেক হাসপাতাল করোনার চিকিৎসা বন্ধ করে দিয়েছে। এর কারণও আছে। রোগী কম থাকায় সরকার এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। কিন্তু আমাদের অবকাঠামো আছে। যেকোনো সময় সংক্রমণ বাড়লে এসব হাসপাতাল ফের চালু করতে অনুরোধ করা হয়েছে। এসব হাসপাতাল ২৪ ঘণ্টার মধ্যে চালু করা যাবে বলে তারা জানিয়েছেন।
কোভিড প্রতিরোধবিষয়ক জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির সদস্য ও ভাইরোলজিস্ট ডা. নজরুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশে সাম্প্রতিক সময়ে কোভিড-১৯ সংক্রমণের হার কিছুটা বেড়েছে- এটা সত্য। কিন্তু এটাকে দ্বিতীয় ওয়েভ বা ঢেউয়ের সঙ্গে তুলনা করা আসলে ঠিক হবে না। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গাইডলাইন অনুযায়ী যদি বলা হয়, তবে এই মাত্রা পাঁচ শতাংশের নিচে নেমে না আসা পর্যন্ত পরিস্থিতিকে নিয়ন্ত্রণের বাইরেই বলতে হবে। আমাদের কিন্তু এখনো একবারও সেই মাত্রায় নেমে আসেনি। তাই দ্বিতীয় ওয়েভ বলতে যা বোঝানো হচ্ছে, তেমন কিছু দেখা যাবে কি না, তা হয়তো দিনগুলোই বলে দেবে। কিন্তু এখন পর্যন্ত যে সংক্রমণের চিত্র, তাতে কোনো সিদ্ধান্তে যাওয়া ঠিক হবে না।
তিনি বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে নমুনা পরীক্ষাও কিন্তু বাড়ছে। এ কারণেও সংক্রমণ বাড়তে পারে। কিন্তু শতাংশ হিসাব করলে তেমন কোনো পরিবর্তন লক্ষ করা যাবে না। তবে নমুনা পরীক্ষায় উৎসাহিত করতে হবে মানুষকে। একই সঙ্গে সাধারণ মানুষের কাছে নমুনা পরীক্ষার সুযোগ নিয়ে যেতে হবে। কারণ, অনেকেই এখন নমুনা পরীক্ষা নিয়ে অনীহা প্রকাশ করছেন। সেই সঙ্গে আমাদের মৃত্যুর হার অন্যান্য দেশের তুলনায় কম হলেও আগের চেয়ে এখনও আমাদের শনাক্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা একটা স্টেডি অবস্থার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে।
ডা. মোশতাক বলেন, দেশের জনগণ এখন স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না- এটি বিপজ্জনক হতে পারে। এ অবস্থায় আমাদের নমুনা পরীক্ষার পরিমাণ বাড়ানোর পাশাপাশি সম্ভব হলে এলাকাভিত্তিক আইসোলেশনের ব্যবস্থা করতে হবে। এক্ষেত্রে হয়তো সংক্রমণের মাত্রা আরো নিয়ন্ত্রণে রাখা যাবে। তবে সংক্রমণের মাত্রা ৫ শতাংশের নিচে নামার পর তিন সপ্তাহের মতো সে সংখ্যায় স্থির না থাকলে নিশ্চিন্ত হওয়ার কিছু নেই। সবাইকে সম্মিলিতভাবে এগুলো নিয়ে ভাবা দরকার ও সচেতনভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার দরকার।







 সর্বশেষ সংবাদ

দেশে একদিনেই ৩৬ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৯০৮
প্রতিটি মানুষের জন্য বিনামূল্যে ভ্যাকসিন নিশ্চিতের আহ্বান
করোনায় আক্রান্ত বিসিবির আম্পায়ার
সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরলেন জুয়েল আইচ
প্রেস কাউন্সিল আইন সংশোধন হচ্ছে: তথ্যমন্ত্রী
চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের জন্য প্রস্তুত হচ্ছে বাংলাদেশ: পলক
আগাম জামিন চাইলেন পাপুলের স্ত্রী-মেয়ে-শ্যালিকা
আরো খবর ⇒

 সর্বাধিক পঠিত

মাদারীপুরে ২ টি গাঁজা গাছসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার
রাজধানীতে কাল কম্বল বিতরণ উদ্বোধন করবেন জিএম কাদের
পাথরঘাটা হানাদারমুক্ত দিবস পালিত
কম্পিউটার শিশুদের কি দরকার?
দেশ জাতি ও মানুষের জন্য যেন কাজ করতে পারি: এম.এন.এইচ বুলু
‘গোল্ডেন’ সহযোগিদের গা ঢাকা
সিরাজগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা গ্রেপ্তার
প্রকাশক: এম এন এইচ বুলু
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মাহফুজুর রহমান রিমন  
বিএনএস সংবাদ প্রতিদিন লি. এর পক্ষে প্রকাশক এম এন এইচ বুলু কর্তৃক ৪০ কামাল আতাতুর্ক এভিনিউ, বুলু ওশেন টাওয়ার, (১০তলা), বনানী, ঢাকা ১২১৩ থেকে প্রকাশিত ও শরীয়তপুর প্রিন্টিং প্রেস, ২৩৪ ফকিরাপুল, ঢাকা থেকে মুদ্রিত।
ফোন:০২৯৮২০০১৯-২০ ফ্যাক্স: ০২-৯৮২০০১৬ ই-মেইল: [email protected]