শনিবার ২৮ নভেম্বর ২০২০ ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
 
শিরোনাম: হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারে আরও সতর্ক হতে হবে       ৭ ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত       করোনা দ্বিতীয় ঢেউ সামাল দিতে মাস্কের চাহিদা বেশি, বিক্রি হচ্ছে দ্বিগুণ দামে       ধর্মীয় সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী বিতর্কের সৃষ্টি করছে: কাদের       দেশে একদিনেই ৩৬ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৯০৮        প্রতিটি মানুষের জন্য বিনামূল্যে ভ্যাকসিন নিশ্চিতের আহ্বান (ভিডিও)       প্রেস কাউন্সিল আইন সংশোধন হচ্ছে: তথ্যমন্ত্রী      


‘সম্রাট ছিলো ওপরের খোলস ভেতরে ছিলেন অন্যরা’
সাফাত জামান
প্রকাশ: শুক্রবার, ২০ নভেম্বর, ২০২০, ৩:৫৩ পিএম |

ক্যাসিনো-কাণ্ডের ঘটনা নিয়ে অনেক রিপোর্ট করেছিলাম। ঘটনার ভেতরে প্রবেশ করতে পেরেছিলাম মনে হয়। রিপোর্ট করতে গিয়ে দেখেছি- সম্রাট ছিলো ওপরের খোলস, ভেতরে ছিলেন অন্যরা। সম্রাট ছিলো রাজনৈতিক ছাউনি। অর্থ কামাইয়ের লোক যারা ছিলেন, তারা সবাই অন্য দল থেকে আসা। সম্রাট ধোয়া তুলসী পাতা তা বলছি না। বলার কোনো কারণও নেই। সম্রাট অনেক অমার্জনীয় অপরাধ করেছে। তার প্রধান দোষ বিএনপি-ফ্রিডম পার্টি থেকে আসা লোকদের অবৈধ অর্থ অর্জনের সুযোগ করে দিয়েছে। তার প্রাপ্য সম্রাট পাচ্ছে। না হলে সম্রাটের মতো রাজনৈতিক কর্মীর তো এমন পরিণতি হওয়ার কথা নয়। 
সম্রাটকে চিনি অনেক দিন ধরে। এরশাদবিরোধী আন্দোলনের সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ছিলাম। সে সময়ে এক রাজনৈতিক সহকর্মীর মাধ্যমে পরিচয় হয় সম্রাটের সঙ্গে। সে সময়ে রাজনীতিতে কেবল তার পথচলা শুরু। 
বড় দুর্দিন ছিলো আওয়ামী লীগের। আওয়ামী লীগের সক্রিয় কর্মীদের প্রতিনিয়ত জীবনের ঝুঁকি ছিলো। লড়াই করতে হয়েছে বিএনপি, জামায়াত, ফ্রিডম পার্টি ও এরশাদের দলের সঙ্গে। জামায়াত-বিএনপি-ফ্রিডম পার্টি ছিলো ভাই। তাদের সবার শত্র“ ছিলো আওয়ামী লীগ। টার্গেট ছিলো আওয়ামী লীগের কর্মীরা। সে সময়ে আওয়ামী লীগ কর্মীদের লড়াইয়ের কথা হয়তো আজ অনেককে বলে বোঝানো যাবে না। আজ অনেকে নাকি বলেন, তারা আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় এনে দিয়েছে। সেদিনগুলোতে তাদের ভ‚মিকাও দেখেছি। এখনো অমাবস্যা-পূর্ণিমা হলে ঘাড়ে, পিঠে, পায়ে তাদের লাঠির আঘাতের কথা মনে করিয়ে দেয়।
 যা হোক বলছিলাম সম্রাটের কথা। আজ অনেকে ভয়ে সম্রাটের নাম উচ্চারণ করে না। দীর্ঘদিন সম্রাটের সঙ্গে দেখা হয় না। কথা হয় না। তবে শুনেছি-দেখেছি সম্রাট যুবলীগকে সংগঠিত শক্তি হিসেবে গড়ে তুলেছে। ক্যাসিনো ঘটনার পর সম্রাটের ছবিসহ রিপোর্ট করেছিলাম, রিপোর্ট পড়ে সম্রাট তার এক নিকটজনের কাছে দুঃখ করে বলেছিলো- ‘ভাই তো কোনো দিন আমার কাছে কিছু চাইতে আসেনি, কোনো কিছু নিয়ে মনকষাকষিও হয়নি, তাহলে ভাই আমার বিরুদ্ধে লাগলো কেনো?’ 
ক্যাসিনো ঘটনায় জড়িত ছিলেন লোকমান হোসেন। তিনি গ্রেপ্তারও হয়েছিলেন। লোকমান হোসেনের পরিচয় অনেকেই জানেন। বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নিরাপত্তা দলের প্রধান তিনি। পল্টনের একটি জনসভায় খালেদা জিয়ার মাথার ওপর ছাতা ধরে রয়েছেন লোকমান, সে ছবি ভাইরাল হয়েছিলো ক্যাসিনো ঘটনার পর। সেদিন শুনলাম লোকমানের জামিন হয়েছে। তিনি এখন বাইরে। সে জন্যই বলছিলাম খালেদা জিয়ার নিরাপত্তা দলের প্রধানের জামিন হয়, একই অপরাধে সম্রাটরা জেলে পচে মরে। হয়তো আমার লেখাটিও ঝুঁকিপূর্ণ। অনেক সংস্থাই এটাকে ভালোভাবে নেবে না। তারপর লিখলাম। ঘটনাটা ভালো লাগেনি বলে। 







 সর্বশেষ সংবাদ

জন্মদিনে ক্যামেলিয়াকে শুভেচ্ছা জানালেন কেয়া
বরগুনায় বাল্যবিয়ে বন্ধ করল প্রশাসন
তাইওয়ানের পার্লামেন্টে ব্যাপক হাতাহাতি
তিন সপ্তাহে আরও ৬০ হাজার আমেরিকানের মৃত্যুর শঙ্কা
নাগাল্যান্ডে মাটি খুঁড়তেই মিলছে হীরা
কোরিয়ায় ২ জনকে হত্যা  যুক্তরাষ্ট্রকে উস্কানি না দেয়ার নির্দেশ
৪ ভারতীয় নাবিক অপহƒত
আরো খবর ⇒

 সর্বাধিক পঠিত

রাজধানীতে কাল কম্বল বিতরণ উদ্বোধন করবেন জিএম কাদের
দেশ জাতি ও মানুষের জন্য যেন কাজ করতে পারি: এম.এন.এইচ বুলু
পাথরঘাটা হানাদারমুক্ত দিবস পালিত
ফিল্ম ফেয়ারে মনোনয়ন পেলেন বাংলাদেশের ইশরাত তন্বী
‘গোল্ডেন’ সহযোগিদের গা ঢাকা
সিরাজগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা গ্রেপ্তার
দীর্ঘ হচ্ছে বেগমপাড়ার সাহেবদের তালিকা
প্রকাশক: এম এন এইচ বুলু
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মাহফুজুর রহমান রিমন  
বিএনএস সংবাদ প্রতিদিন লি. এর পক্ষে প্রকাশক এম এন এইচ বুলু কর্তৃক ৪০ কামাল আতাতুর্ক এভিনিউ, বুলু ওশেন টাওয়ার, (১০তলা), বনানী, ঢাকা ১২১৩ থেকে প্রকাশিত ও শরীয়তপুর প্রিন্টিং প্রেস, ২৩৪ ফকিরাপুল, ঢাকা থেকে মুদ্রিত।
ফোন:০২৯৮২০০১৯-২০ ফ্যাক্স: ০২-৯৮২০০১৬ ই-মেইল: [email protected]