শুক্রবার ৪ ডিসেম্বর ২০২০ ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
 
শিরোনাম: মাইক ব্যবহারে কঠোরতা        পাকিস্তানকে ক্ষমা করা যায় না : প্রধানমন্ত্রী        বিনা মূল্যে করোনার অ্যান্টিজেন পরীক্ষা শুরু শনিবার       করোনার নকল ভ্যাকসিন নিয়ে সতর্ক করলো ইন্টারপোল       দেশে অরাজকতা তৈরির অপচেষ্টা চলছে: তথ্যমন্ত্রী       স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীসহ ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড        গোল্ডেন মনিরের নেপথ্যের পৃষ্ঠপোষকরা এখনো অধরা       


ট্রাম্প ক্ষমতা না ছাড়লে কি হতে পারে?
আব্দুল বারী
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১০ নভেম্বর, ২০২০, ৬:৪২ পিএম আপডেট: ১০.১১.২০২০ ৬:৪৪ পিএম |

ডোনাল্ড ট্রাম্পকে অনেকেই পাগল মনে করেন। আমিও তাই মনে করি। তবে একথা মানি যে তিনি হলুদ রঙের অপদ্রব্য খাওয়া পাগল নিশ্চয়ই নন।
তিনি ঘরে বাইরে হাজারো শক্তির বিরুদ্ধে লড়ে ক্ষমতার চার বছর পার করেছেন। কিভাবে পার করেছেন সেকথাও মাথায় নিতে হবে। জো বাইডেন বিজয়ী হয়ে গেছেন। দেশ-বিদেশের রাজা-বাদশা উজির-নাজিররা তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। তিনি জাতির উদ্দেশে একখান ভাষনও দিয়ে ফেলেছেন। কোন দেশের কার সাথে কেমন সম্পর্ক করবেন তা অব্যক্ত নেই। ইতোমধ্যেই পণ্ডিত গোষ্ঠী তার কোষ্ঠী গনণা শুরু করে দিয়েছেন। তাদের মন্তব্য নিয়ে খবরের কাগজ ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া শুরু হয়েছে চুলচেরা বিশ্লেষণ।
 
সব মিলিয়ে এটা নিশ্চিত যে জো বাইডেনই হচ্ছেন আমেরিকার ৪৬ তম রাষ্ট্রপতি। এর বিরোধীতা করে যদি বলি বাইডেন নয়, ডোনাল্ড ট্রাম্প আগামী ২৩ জানুয়ারি শপথ নিবেন। তাহলে আমাকে পাগল-ছাগল বলে গালি দেওয়ার লোকের অভাব হবে না। একথাও মানি। তবে, এ সম্ভাবনা একেবারেই অমূলক নয়। ডোনাল্ড ট্রাম্প অযথাই নানা রকম পাগলের বুলি আওড়াচ্ছেন তাও নয়।
 
তিনি এখনো বলছেনঃ তিনিই হবেন ৪৬ তম প্রেসিডেন্ট। এর কারণ কি? একি কেবলই পাগলের বুলি? এর বিশ্লেষণ জানতে হলে ধৈর্য ধরে পড়তে হবে সবটা। 

আমেরিকার সংবিধানে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনটাকে সহজ করে বানানো হয়নি। এর পদ্ধতিগত কৌশল খুবই জটিল। এই জটিলতার কারণে ১৮৪২ সালে এন্ড্রু জ্যাকসন পপুলার ভোটে জিতে এবং ইলেক্ট্রোরাল ভোটে হেরে প্রেসিডেন্ট হতে পারেননি। তাই কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদ জ্যাকসনের প্রতিপক্ষ ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ট কুইন্সি এডামসকে ২য় মেয়াদের জন্য নির্বাচিত করেছিলেন। 

এবারে ডোনাল্ড ট্রাম্প ৫০ টি মধ্যে ২৪ রাজ্যে পপুলার ভোটে জিতেছেন। যার পরিমান প্রায় ৭ কোটি। এই সংখ্যা পোলিং ভোটের ৪৭%। ৫৩৮ টি ইলেক্ট্রোরাল ভোটের মধ্যে ২১৪ টি অর্জনের যোগ্য হয়েছেন।
  
প্রতিপক্ষ জো বাইডেন ৭ কোটি ৩০ লাখ ভোট পেয়ে ৩০ টি রাজ্যে জিতেছেন। তার পক্ষে ২৭৩ টি ইলেক্ট্রোরাল ভোট নিশ্চিত হয়েছে। এর অর্থ হলো এই যে পপুলার ও ইলেক্ট্রোরাল ভোটে ট্রাম্পের জয়ের সম্ভাবনা জিরো। তাহলে উনি আবারও প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিবেন এই দাবির ভিত্তি কোথায়?

এর পরের ধাপে গিয়ে দেখি সেখানে কি আছে। এর পরের ধাপ হলো এই যে, স্টেট সেক্রেটারিদের কাছে নির্বাচনী ফলাফল জমা দিবেন ইলেকশন কমিশন। তিনি সেই রেজাল্ট যাচাই বাছাই করে রাষ্ট্রের প্রতিনিধি ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের কাছে জমা দিবেন। একই ভাবে প্রতিটি রাজ্যের আইন সভার মাধ্যমেও আসবে ফলাফল। তিনি দুই কর্তৃপক্ষের দেওয়া যে কোন একটি ফলাফল কার্যকর হিসেবে গ্রহণ করবেন। আবার কোনটাই গ্রহণ না করে দুই প্রার্থীর যে কোন একজন কে নির্বাচনের জন্য সিনেটরদের নিয়ে ভোট করতে পারবেন। যদি এমন হয় তাহলে কি হবে? সিনেটে এমন ভোট দেওয়ার জন্য দায়িত্ব পাবেন উভয় দলের ৪৯ জন। এর মধ্যে ট্রাম্পের রিপাবলিকান দলে ২৬ এবং বাইডেনের ডেমোক্রেটিক দলে ২৩ জন আছেন। এক্ষেত্রে ২৬ ভোটে বিজয়ী হতে পারেন ট্রাম্প। রেফারেন্স প্রেক্ষাপট ১৮৪২ সালের রাষ্ট্রপতি নির্বাচন।
 
যেহেতু মাইক পেন্স ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভাইস প্রেসিডেন্ট সেহেতু তাকে দিয়ে বিষয়টি সিনেট পর্যন্ত আনার সুযোগ আছে। আইন থাকলেই তো হবেনা। এর পক্ষে প্রয়োজন জনসমর্থন। পপুলার ভোটের ৪৭% ও ২১৪ ভোট কি এই কাজের জন্য যথেষ্ট? না, তা নয়। সেই জন্যই কি তিনি বলেছেন দলের লোকেরা রাস্তায় নামছেনা কেন! এই জন্যই কি তার দলের কিছু লোক এসল্ট রাইফেল নিয়ে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করছেন? এই বিশাল দেশের সচেতন জনগণ যে এটা সমর্থন করবেনা তা ইতোমধ্যেই পরিষ্কার হয়ে গেছে। সুতরাং বলা যেতেই পারে ট্রাম্পের সেই আশার গুড়ে কেবলই বালি নয় হলুদ রঙের সেই অপদ্রব্যও পড়ে গেছে।

আরেকটি ভরসা আছে। সেটা হলো আদালত। তাও কি সম্ভব? এটাতো অনুন্নত দেশের সরকার পরিচালিত কোর্ট নয়। এই কোর্ট দিয়ে রায় বের করে তিনি হোয়াইট হাউজের চাবি আটকে রাখবেন তা তো সম্ভব নয়।
আবার পেন্টাগন ও সিনেটের প্রেসার লবি কি করতে কি করে বসে সেটা একমাত্র সময়ই বলতে পারবে। 

নিয়মঃ নতুন প্রেসিডেন্ট শপথ নেওয়ার ক্ষণ থেকেই রাষ্ট্রের সকল ক্ষমতায় স্বয়ংক্রিয় ভাবে নতুন রাষ্ট্রপতির নিয়ন্ত্রণে চলে যাবে। সে ক্ষেত্রে রাষ্ট্রযন্ত্র তাকে ক্রেন দিয়ে হলেও হোয়াইট হাউজ থেকে তুলে নিয়ে যাবে।

উপসংহারঃ ডোনাল্ড ট্রাম্প পাগল হলেও অপদ্রব্য খাওয়ার মতো পাগল নিশ্চয়ই নয়। একথা সে না মানলেও আমরা নিশ্চয়ই মানি।

লেখক: সিনিয়র সাংবাদিক







 সর্বশেষ সংবাদ

মনোজ ও শতাব্দীর সঙ্গে 'কাল রাত আজ রাত' নিয়ে বৃষ্টি
মাইক ব্যবহারে কঠোরতা
সুন্দরবনের দুবলার চরে শুঁটকি উৎপাদনে ধুম, কর্মব্যস্ত জেলেরা
বরগুনায় জেলা হানাদারমুক্ত দিবস পালিত
পাকিস্তানকে ক্ষমা করা যায় না : প্রধানমন্ত্রী
কোটালীপাড়ায় মুক্ত দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা
পুঁজিবাজারে সূচকের বড় উত্থান
আরো খবর ⇒

 সর্বাধিক পঠিত

মাদারীপুরে জেলা প্রশাসকের সাথে সাংবাদিকদের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত
আওয়মীলীগের মনোয়ন পেতে তিন মেয়র প্রার্থীর প্রতিযোগিতা
সিরাজগঞ্জে ৪র্থ শ্রেণীর ছাত্রীকে ১ মাস ধরে গণধর্ষণ, আটক ১
গ্রামের মানুষের ভাগ্যের উন্নয়ন করাই আমাদের মূল লক্ষ্য: ড. মিহির কান্তি মজুমদার
আজ কোটালীপাড়া মুক্ত দিবস
ত্রিভুজ প্রেমের গল্পে ‘হৃদয়ের আঙ্গিনায়’
১৬ ডিসেম্বর উপলক্ষে ৯ দেশাত্মবোধক গান তৈরি করছেন ফরিদ আহমেদ
প্রকাশক: এম এন এইচ বুলু
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মাহফুজুর রহমান রিমন  
বিএনএস সংবাদ প্রতিদিন লি. এর পক্ষে প্রকাশক এম এন এইচ বুলু কর্তৃক ৪০ কামাল আতাতুর্ক এভিনিউ, বুলু ওশেন টাওয়ার, (১০তলা), বনানী, ঢাকা ১২১৩ থেকে প্রকাশিত ও শরীয়তপুর প্রিন্টিং প্রেস, ২৩৪ ফকিরাপুল, ঢাকা থেকে মুদ্রিত।
ফোন:০২৯৮২০০১৯-২০ ফ্যাক্স: ০২-৯৮২০০১৬ ই-মেইল: [email protected]